সত্য ঘটনা অবলম্বনে পর্ব ২+৩

0
70

সত্য_ঘটনা_অবলম্বনে
পর্ব_২ +৩

চাদরে পিরিয়ডের মতো লাল ছোপ ছোপ দাগ দেখে আমি ভয়ে আরো চিৎকার দিয়ে উঠলাম। আমার হাজবেন্ড আমার দিকে তাকিয়ে দেখে এই অবস্থা যদিও আগে সে এসব বিশ্বাস করতো না কিন্তু সেদিন রাতে আমার অবস্থা দেখে সে ও কিছুটা ভয় পেয়ে গিয়েছিল।পরে সেদিন আর এসব বিষয়ে ভয় পেয়ে ডা. এর কাছে যাওয়া হলো না। কিন্তু আমি সারাদিন এটাই ভাবলাম যদি আমার পেটে বেবি থাকে তাহলে পিরিয়ড কেন হবে আমার। কি অদ্ভুতুড়ে ব্যাপার ঘটছে আমার সাথে। সারাটাদিন ভালো কাটলেও রাত আসলেই আমার নিশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার অবস্থা হতো। সেদিন ও অন্য রাতের চেয়ে ব্যাতীক্রম কিছু ঘটে নি একই অবস্থা হচ্ছিলো মনে হয় কেউ একজন আমার সাথে বাজে কিছু করছে তার ঠিক ১ ঘন্টা পরই আমার পেট ফুলে ঠিক ৫-৬ মাসের বাচ্চার মতো হয়ে গেছে। আর আমার ঠিক কি হয়েছিল আমি জানি না আমি নিজের পেটেই ঔষধের বোতল দিয়ে ইচ্ছে মতো আঘাত করতেছি। রাত ১২ টার পরেও আমার শাশুড়ি এই অবস্থা দেখে তিনি এক বড় এলেম আনলেন আমাকে জপ নেয়ার জন্য। কিন্তু এলেমের আমাদের বাড়িতে পা পরা মাত্রই আমার অবস্থা একদম স্বাভাবিক হয়ে যায়। তখন ব্যাপার টা সবাই ই বুঝতে পেরে গিয়েছিল যে হয়তো কোনো বদ জ্বীন দূর থেকে আশ্র‍য় করে। উনি কিছু তেল আর পানি পড়ে দিয়ে আমার শাশুড়ির কাছে দিয়ে গেছেন। যেইমাত্র এলেম চলে গেল ঠিক সে মুহূর্তেই আবার পাগলামি শুরু হলো আমি আমার হাজবেন্ডকে মারতে আসছি আরেকবার শাশুড়িকে। তখন তারা আমায় একটা রুমের মধ্যে একা বন্ধ করে দিয়ে চলে গেল সেদিন রাত টা আমার ঠিক কিভাবে কেটেছিল আমি আদৌ জানি না।
সকাল বেলা আমার আম্মু আব্বুকে ফোন করে সব ঘটনা বলা হয় এবং আমাকে পাঠিয়ে দেয়া হয়। সেখানে গিয়েও একই অবস্থা। তবে ১২ দিন পর জানতে পারলাম বাচ্চাটা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। কিভাবে হলো সেটাও বলতে পারবো না। আমার বাবার বাড়িতে গিয়েই হয়তো আমার আরো বিশাল ক্ষতিটা হয়েছিল। এইদিকে তার ২ দিন পরেই আমার হাজবেন্ড ডিভোর্সের কথা বলল। রাত ১১:৫৬ এ আমি একা একা ই বাহিরে গেলাম সেই থেকে আমি প্রায় ৭ টা বছর বাড়িতে ছিলাম না।
উঠানে পা দেয়া মাত্রই আমার কাছে মনে হচ্ছিলো প্রচন্ড বাতাস আর সেই বাতাসের সাথেই আমি উড়ে যাচ্ছিলাম। দীর্ঘ ৭ বছর আমি কোনো এক বদ জ্বীনের কাছে ছিলাম আর সেটার ও কারন আছে।

সত্য ঘটনা অবলম্বনে
পর্ব_৩
লেখা Ibnitha Erin (শারমিন)

দীর্ঘ ৭ বছর আমি আমার পরিবারে ছিলাম না। আব্বু আম্মু সবাই অনেক কান্নাকাটি করেছে ৩ রাস্তার মোড়ে ভোগ দিয়েছে তবুও আমার কোনো খোঁজ পায় নি। আমার জীবন থেকে সেই ৭ টি বছর চলে গিয়েছিল কিন্তু আমার ঠিক কিচ্ছু মনে নেই কোথায় ছিলাম কার সাথে ছিলাম। তারপর একদিন রাত ২ টায় আমাদের দরজার সামনে একটা বিকট শব্দ হয় আর আমার আব্বু আম্মু বের হয়ে দেখে আমার গায়ে কোনো কাপড় ছাড়াই আমি দরজার সামনে দাঁড়িয়ে। আমার এই অবস্থা দেখে ভয় পাওয়াই স্বাভাবিক ছিল তখন আমার মা আমায় দেখে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। জ্ঞান ফিরলে মায়ের একটা হাত একটা পা অবস হয়ে যায়।
তখন থেকে ছোট বোন ই পরিবারে দেখা শোনা করত। আমার বাবা আমায় এক কবিরাজের কাছে নিয়ে যায় তখন উনি বলে ৭ বছর রেহানা এক বদ জ্বীনের কাছে ছিল। আর আমার প্রতি তার কুনজর হয়েছিল সেই দিন থেকেই যেদিন আমার মা আমায় ৫ মাসের পেটে করে কাঁচা মাছ কাটছিল রাত করে সেদিন থেকেই। তখন মা ও বলেছিল যে হ্যাঁ সেদিন নিরুপায় হয়ে আমি মাছের কাছে গিয়েছিলাম। আমার জীবন টা হেল করে দিয়েছিল এই জ্বীন টা। ৭ বছর পরেও আমায় বাসায় ফিরাতো না কিন্তু আমায় বস করতে না পেরে দরজার সামনে ফেলে দিয়ে গিয়েছিল। এতো দিন পর বাসায় এসে দেখলাম যে আমার স্বামী ও ডিভোর্স পাঠিয়ে দিয়েছেন।
কিন্তু তার কিছু মাস পরে আমার শারীরিক অবস্থা ভালো দেখে আমার বাবা আমায় আবার বিয়ে দিতে চাইলেন। আমি যদিও প্রথমে রাজি ছিলাম না কিন্তু অনেক জোরাজোরি করে আমার বাবার খালাতো বোনের ছেলের কাছে আমায় বিয়ে দিল। তখন বিয়ের প্রথম রাতেই নাকি আমি তাকে বলেছিলাম,,, কে আপনি আমার ভাই নাকি বাবা,,,, আপনাকে আমি বাবা ই বলবো হুম। তারপরে কাছে আসতে চাইলে খুন করার কথা বলতাম দা বটি দিয়ে কাটতে যেতাম। তখন সবাই বুঝতে পেরেছিল আমি কোনো পুরুষের সাথে সঙ্গ দিতে চাইলেই আমায় দূর থেকে আশ্র‍য় করে। রাতে আমি যখন ঘুমাতাম তখন পাশের রুমে যারা ঘুমায় তারা স্পষ্ট শুনতে পেতো যে আমার সাথে খারাপ কিছু ঘটতেছে।

চলবে??
সাড়া পেলে পরের অংশ লিখব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here