সাঁঝেরবেলায় তুমি আমি পর্ব ৮

0
60

#তাসনিম_তামান্না
#সাঁঝেরবেলায়_তুমি_আমি
#পর্ব_৮

🍁🍁🍁

ঢাকা থেকে খুলনা সারারাত জার্নি করে সকালে এসে পৌঁছেছে আরমান, প্রমি, আশা, আসাদ। প্রমির এখানে আসার কোনো ইচ্ছে ছিলো না কিন্তু আশা জোর করে নিয়ে আসছে। প্রমি এখানে আসার সময় সারা রাস্তা শুধু একটা কথায় ভেবেছে ‘ওখান কার মানুষ জন কেমন, কেমন ভাবে আমাকে নিবে, আমি বাইরের মানুষ হয়ে ওদের ফ্যামিলির অনুষ্ঠানে ডুকছি নিশ্চয়ই কেউ ভালো ভাবে নিবে না, আমাকে খারাপ মেয়ে ভাববে’ এমন হাজারো কথা ভেবেছে আসতে আসতে।।। আসল লেখিকা-তাসনিম তামান্না।। কিন্তু যখন এখানে এসেছিলো তখন…..

কলিং বেল বাজাতেই একটা মেয়ে এসে দরজা খুলে দিয়ে ‘বড়মা’ ‘বড়মা’ বলে ডাকতে লাগলো।তখনি একটা মধ্যেবয়সক মহিলা ছুটে আসলো আশার মতোই হালকা রংয়ের থ্রি পিস পড়া, মাথায় কাপড় দেওয়া তার পরও মাথার হালকা লাল, কালো চুল গুলা দেখা যাচ্ছে।দেখতে আশার চেহারার সাথে মিল দেখে প্রমি ধরে নিলো এটাই আশার বড় ‘সাবিনা’। সাবিনা ওদের সাথে কুশল বিনিময় করে প্রমিকে দেখতে পেয়ে প্রমির দিকে হাসি মুখে এগিয়ে আসলো।। আসল লেখিকা- তাসনিম তামান্না।। প্রমি পিটপিট করে তাকিয়ে বলল

-আসালামু আলাইকুম (প্রমি)

-ওয়ালাইকুম আসালাম….. তুমিই তাহলে প্রমি? (সাবিনা)

প্রমি মনে মনে ভাবলো এনি কেমন করে চিনলো পরক্ষণে ভাবলো আশা বলছে। তাই প্রমি উপর নিচ মাথা নাড়িয়ে বলল

-হ্যাঁ (প্রমি)

-মাশাআল্লাহ আচ্ছা আমাকে খালামনি ডাকবি না না আশাকে যেমন মামনি ডাকিস তেমন আমাকেও মামনি ডাকবি বুঝলি…তুই বলেছি বলে আবার রাগ করিস না আমি এমনই (সাবিনা)

প্রমির ঠোঁট জোড়া কিঞ্চিত ফাঁক হয়ে গেলো অবাকে। সাবিনা এমন ভাবে কথাটা বললো যেনো কতদিনের চেনা সম্পর্ক ওদের। প্রমির অবাক হওয়া মুখ দেখে মুচকি হেসে সাবিনা বলল

-অবাক হওয়ার কিছু নেই বুঝলি যা ফ্রেশ হয়ে নে কত দূর থেকে জার্নি করে আসছিস তোরা….. আরমান যা রুমে যা বাবা….আশা, আসাদ যাও ফ্রেশ হয়ে নাও…প্রমি চল আমার সাথে…. চুমকি লাগেজ গুলা রুমে দিয়ে আই মা… (সাবিনা)

তখনি যে মেয়েটা দরজা খুলে দিয়েছিলো সে মেয়েটা এসে বলল ‘আইচ্ছা আমি নিয়া যাইতাছি’ প্রমি সাবিনার স্বাভাবিক আর এত সুন্দর ব্যবহারে অবাক বাড়ির কাজের মেয়েকে ‘মা’ বললো দেখে।
.
সাবিনা প্রমিকে একটা রুমে আনলো। রুমটা পিংক আর সাদা কালারের রং করা, ওয়েবড্রপে বড় বড় মিকিমাওজের স্টিকার, একটা দেওয়ালে অনেক ছবি, বিভিন্ন ধরনের ডল, রুমটা অনেক সুন্দর ভাবে গুছানো প্রমি এগুলো দেখে অনেক অবাক হলো।।আসল লেখিকা -তাসনিম তামান্না।।

-এটা নিশির রুম তুই আর নিশি এ রুমে থাকিস দুজন একসাথে থাকলে কোনো সমস্যা হবে তোর..? (সাবিনা)

প্রমি দুরুতর সাথে জবাব দিলো

-না না মামনি আমার কোনো সমস্যা হবে না। কিন্তু নিশির সমস্যা হবে না তো? (প্রমি)

সাবিনা মুচকি হেসে বলল

-নিশি কলেজে গিয়েছে না হলে এতোক্ষণ বকবক করে মাথা খেয়ে নিতো ও আসলে দেখিস ওর সমস্যা হবে কি না?… তোর এসব ভাবতে হবে না তুই যা ফ্রেশ হয়ে নে আমি খাবার নিয়ে আসছি (সাবিনা)

কথাটি বলে সাবিনা চলে গেলো। প্রমি জামা কাপড় নিয়ে শাওয়ার নিয়ে চুল মুছতে মুছতে বাইরে এসে দেখলো সাবিনা আর আশা বসে আছে। প্রমিকে দেখে আশা বলল

-প্রমি এতোক্ষণ শাওয়ার নিলি কোনো ঠান্ডা লাগবে তো? (আশা)

-না মামনি কিছু হবে না (প্রমি)

-এই তুই যা তো রেস্ট নে গে যা আমার প্রমির সাথে কথা আছে (সাবিনা)

-আপু প্রমির সাথে আবার কি কথা বলবি তুই? আর কি ই বা এমন কথা যা আমার সামনে বলা যাবে না? (আশা)

-সেটা আমার আর প্রমির সিক্রেট কথা তোকে কেন বলবো তুই যা (সাবিনা)

সাবিনা যখন বলল ‘প্রমির সাথে কথা আছে’ তখন থেকে মনের ভয় লাগতে লাগলো কোনো ভুল করে ফেললো কিনা সেটা ভাবছে বারংবার কিন্তু বরাবরই ভাবনার খাতা শূন্য দেখাছে।
আশা চলে যেতেই প্রমি কাঁপা কাঁপা গলায় বলল

-মামনি আমি কি কোনো ভুল করেছি? (প্রমি)

সাবিনা ভ্রু কুচকে বলল

-কই না তো? কখন? (সাবিনা)

সাবিনার ‘কই না তো’ কথাটুকু শুনে মনে জেনো শান্তি পেলো। প্রশংঙ্গ পালটিয়ে বলল

-না কিছু না আপনি না কি বলতে চাইছিলেন বলেন? (প্রমি)

-একটা চড় দিবো..(সাবিনা)

সাবিনার কথা শুনে ভয় পেয়ে যায় প্রমি। ভয়ত চোখে তাকালো সাবিনার দিকে। সাবিনা আগের ন্যায় বলল

-আপনি কি হ্যাঁ তুমি বলবি (সাবিনা)

প্রমি ফ্যালফ্যাল করে বার কয়েক পলক ফেললো।

-এমন তাকিয়ে না থেকে খেয়ে রেস্ট নে আমি আসছি, আর হ্যাঁ শোন কোনো সমস্যা বা কোনো দরকার হলে আমাকে বলিস (সাবিনা)

প্রমি ছোট করে উত্তর দেই।

-আচ্ছা (প্রমি)

প্রমি খেয়ে বিছানায় শুতেই চোখে ঘুমপরিরা এসে হানা দেই। প্রমি চোখ খুলতে চাইলেও পারলো না ধিরে ধিরে তলিয়ে গেলো ঘুমের রাজ্যে।
.
প্রমির ঘুম ভাঙ্গতেই ঘড়িতে দেখলো ১.৪৫ বাজে। টাইম দেখতেই প্রমির ঘুম ছুটে যায়।।। আসল লেখিকা-তাসনিম তামান্না।।ফ্রেশ হয়ে নামাজ পড়ে নিচে গিয়ে দেখে কেউ নাই তাই চুমকির কাছে শুনলো

-আপু মামনিরা কোথায়? (প্রমি)

চুমকি হাসি হাসি মুখে জবাব দিলো

-এতোক্ষণ এই হানেই ছিলো একটু আগে নামাজ পরতে গেছে আফা (চুমকি)

প্রমি মিষ্টি হাসি দিয়ে বলল

-আচ্ছা ধন্যবাদ আপু (প্রমি)

-ওয়ালকম (চুমকি)

চুমকির কথা শুনে প্রমি হেসে বলল

-ওয়ালকম না ওয়েলকাম (প্রমি)

-ঔ একি হইলো সবই তো ইংরেজি ভাষা (চুমকি)

প্রমির পেট ফেটে হাসি আসলো। কিন্তু সেটা প্রকাশ না করে ‘হুম’ বলে রুমে এসে হাসলো। হাসতে হাসতে ভাবলো ‘এখানে সবাই কত ভালো আপন না হয়েও আমাকে কতটা আপন করে নিয়েছে সবাই এমন ভাবে কথা বলছে যেনো কতদিনের চেনা অথচ তাদেরকে আমি কখনো দেখিই নি আর আপন মানুষেরা আপন হয়েও পশুর মত ব্যবহার করতো আমি তাদের কাছে বোঝা হয়ে ছিলাম।’।।আসল লেখিকা -তাসনিম তামান্না।। এসব ভাবছিলো তার মাঝেই দরজা ধড়াম করে খুলে গেলো। প্রমি ভাবনার জগৎ থেকে ছিটকে বেড়িয়ে এসে দাড়িয়ে গেলো। একটা মেয়ে দৌড়ে প্রমির সামনে এসে দাঁড়িয়ে ফ্যালফ্যাল করে কিছুক্ষণ তাকিয়ে বলল

-তুমিই প্রমি আপুই? (নিশি)

প্রমি মুচকি হেসে বলল

-হ্যাঁ (প্রমি)

নিশি প্রমির গাল টেনে নিয়ে বলল

-ওয়াও তুমি কত কিউট! তোমার মুখটাও কত সফট কি মাখো তুমি মুখে (নিশি)

নিশির এহিম কান্ডে প্রমি ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যায়। প্রমি আশার কাছ থেকে শুনেছে নিশি খুব চনচল কিন্তু এতো ফাস্ট সেটা ভাবে নি।

-কিছু দি না তো (প্রমি)

-ওওওও জানো আমার ক্লাসে আজ কি হইছে… (নিশি)

প্রমি দু’দিকে মাথা নাড়ালো যার অর্থ ও জানে না।

-আচ্ছা শুনো আমি বলতেছি আমার ক্লাসে একটা মেয়ে পড়ে নাম রুবিনা আর একটা ছেলেটার নাম রাতুল তো রাতুল আজ রুবিনাকে প্রপোজ করছে সেটাতে রুবিনা রাতুলেও উপর রেগে গিয়ে সারা কলেজ দৌড়ানি দিচ্ছে আজ। আর জানো একটা কি হইছে স্যার…..(নিশি)

নিশির বকবক শুনে প্রমি অবাক হয়ে যায়। নিশির কথার মাঝে সাবিনা এসে বলল

-নিশি তোর কথা কেউ শুনতে চাইছে না তুই ফ্রেশ হয়ে নিচে আই। প্রমি চল আমার সাথে এই পাগলের সাথে থাকলে তুই ও পাগল হয়ে যাবি (সাবিনা)

নিশি কাঁদো কাঁদো হয়ে কিছু বলতে যাবে তার আগে সাবিনা প্রমিকে নিয়ে চলে আসে নিচে। একটু পর একে একে সবাই চলে আসে। সাব্বির, আর নিলয়ের (সাবিনার হাসবেন্ট) সাথে পরিচয় হয়ে নেই প্রমি সবাই টুকটাক কথা বলতে বলতে খাওয়া শেষ করে নেয়।
.
.
সন্ধ্যার সময় চা পকড়া খেতে খেতে সবাই প্লান করলো কাল শপিং করতে যাবে সবাই মিলে। এর মধ্যে প্রমি নিশির বকবক শুনতে শুনতে হাসছে তো কখনো বিরক্ত হচ্ছে কিন্তু সেটার ভিতরেও ভালো লাগা কাজ করছে। এর মধ্যে আজ আরমান প্রমির দিকে আড় চোখে তাকিয়েছে কয়েক বার দু একবার প্রমির চোখেও চোখ পড়ে গেছে।

#চলবে
#Tasnim_Tamanna

[ভুলত্রুটি ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। গঠনমূলক কমেন্ট করবেন। লেখিকার নাম ব্যতিত কপি করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। রি-চেক করি নাই]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here