বাতাসী বউ -পর্ব ১০+১২

0
137

#বাতাসী_বউ
____ অন্না
পর্ব,,, ১০

,,,,
( আবির ভালোভাবেই বুঝতে পারলো সুপ্তি ওকে মাফ করনি আর কোনেদিন ও করবেনা,,,,,,,)

,
রাজ ::::: সুপ্তি তুমি এই রকম কাজ আর কনোদিন ও করবেনা। এতোকিছুর পরও আমি তোমায় বিয়ে করতে রাজি। আমি তোমার পাস্ট নিয়ে কনো কথা বলবো না। আমরা অনেক দুরে চলে যাবো কোনো কষ্ট তোমার হতে দিবো না, ,, প্লিজ আমায় ফিরিয়ে দিয়ো না,,,,,,, আমায় একবার বিশ্বাস করে দেখো ঠকবে না,,,,

( আবির দেখলো সুপ্তি রাজের দিকে তাকিয়ে আছে,,,,, আবির আর এক মুহুর্ত দারিয়ে না থেকে বারি দিয়ে দরজা আটকায়ে চলে গেলো,,,,,,, সুপ্তি বুঝতে পারে আবির কেনো চলে গেলো,,,,,,,

,
সুপ্তি- ( আমি যানি আবির তুমি কেনো চলে গেলে এটাই কি সাভাবিক না বলো,,,, আমায় ভালোবাসতা তুমি কিন্তুু আমার ওপর তোমার বিন্দু মাত্র বিশ্বাস ছিলো,,,, এ কেমন তোমার ভালোবাসা আবির। তোমার মা আমার সাথে যাই করুক তাতে তুমি আমায় ছুরে ফেলতে ২ বার ভাবেনি,,,,, আজ আবার কেউ এমন কিছু করলে কি করবা??? তোমায় শাস্তি পেতে হবে আবির, এত সহজে তোমায় মাফ করছিনা আমি,) ভাইয়া আপনার সাথে আমার কিছু কথা আছে,,,

,
রাজ ::: হ্যাঁ বলোনা তোমার কথা শোনার জন্যই আমি এখানে এসেছি,,,,

,
সুপ্তি- আমি জানিনা আমায় আপনি কি ভাবেন বা কতটুকু ভালোবাসেন। কিন্তুু আবিরের অস্তিত্বে শুধু আমি জরিয়ে আছি, ওর জিবনে আমি ছারা কোনো মেয়ে আসবে না তেমনি আমার জিবনে কোনো ছেলে আসবে না,,,

,
রাজ :::::: কিন্তুু আবির তোমায় ভালোবাসেনা, বাসলে কি আর তোমার সাথে এইসব করতো বলো???
,
সুপ্তি- আবির আমায় কিছু করেনি ভাইয়া, আমি দেখতে চেয়েছিলাম আবির আমায় ঠিক আগের মতই ভালোবাসে নাকি প্রতিশোধেে আগুনে ভালোবাসা পুরে গেছে,,,, ভালোবাসি আমি ওকে, কিছু ঘটনার জন্য আমি ওকে ছারতে পারবো না। আর আমাদের বিয়েটা যে সিচুয়েস্যন এ ভাঙছে এটা হওয়াই স্বাভাবিক। কিন্তুু আফসোস ওর দোষ ছিলো একটাই ও আমার ওপর বিশ্বাস করেনি আর আমার দোষ আমি নিজেকে প্রমান করার চেষ্ট্ করিনি। ভাইয়া,,, ও যেমনই হোক আমার, আপনি প্লিজ আমার আশা ছেরে দিন,,,,,

,
রাজ :::: যদি কখনও যানো যে আবির তোমায় ভালোবাসেনা তো ফিরে আসবে কি আমার কাছে???

,
সুপ্তি- এই বিষয়ে আর কোনো কথা বলতে চাইনা,,,

,
রাজ:::: ঠিক আছে সময়ই কথা বলবে তুমি থাকো আমি আসছি,,,,

,
( দেখতে দেখতে ৭ দিন চলে যায়,,, আবির রোজ হাসপাতাল এ আসে কিন্তুু সুপ্তির সামনে যায় না। সুপ্তির বোন এর কাছ থেকে সব খবর নেয়, ,, আজ সুপ্তিকে রিলিজ করবে রাজ, সুপ্তির বাবা, আবিরের বাবা হাসপাতাল এ যায়,,,,,, রাজ কে দেখে আবির চলে আসতে চায় কিন্তুু আবিরের বাবা আবিরকে থামায়ে দেয়।। এর মধ্যে সুপ্তি বের হয়ে এসে ওর বাবাকে বলতে থাকে,,,,,,,,


সুপ্তি- বাবা আমি একা যেতে পারবো না মাথা টা ঘুরছে,,,,,

,
রাজ :::: চলোনা আমি তোমায়,,,,

,
( বলতেই আবির সুপ্তিকে কোলে তুলে নিয়ে যেতে থাকে,,, সবাই হা হয়ে আবিরের দিকে তাকিয়ে থাকে,,, আবির সুপ্তিকে গাড়িতে বসিয়ে দিয়ে সিট বেল্ট বেধে দেয়, তারপর নিজে গাড়ি ড্রাইভ করে বেরিয়ে যায়,,,,,)

,
সুপ্তি মনে মনে ভাবে যে আবির হয়তো এখন তার কাছে ক্ষমা চাইবে, ওর কাছে ফিরে যেতে বলবে, কিন্তুু আবির একটা কথাও বললো না চুপটাপ গাড়ি চালাচ্ছে,, সুপ্তির খুব রাগ হলো ও ইচ্ছে করে সিট বেল্ট খুলে দিলো যাতে আবির ওর সাথে কথা বলে,,, কিন্তুু না আবির গাড়ি থামিয়ে আবার সুপ্তির সিট বেল্ট বেধে দেয়,,, সুপ্তি আরো রেগে যায়। কিছু বলে না।)

,
সুপ্তি- ( তুমি চেনোনা আবির আমায়। আমি আর তোমার সাথে কথা বলতে যাবো না তুমি না বলা অব্ধি)
,
সুপ্তির বাসায় এসে আবির সুপ্তিকে কোলে নিয়ে ওর বেড এ বসিয়ে চলে যায়,,,,,

,
সুপ্তি- সাহস কি করে হয় আমার সাথে এমন করার, রাগ করার কথা আমার আর তুমি ঢং করো আমার সাথে,,,,,,,

,
৭দিন পর সুপ্তি আজ কলেজে যাচ্ছে,,,,, এই ৭ দিন এ একটিবার খোজ ও নেয়নি আবির যেখানে রাজ তিন বেলা খোজ নিছে,,,,,
কলেজে গিয়ে দেখে আবির একটা মেয়ের সাথে হেসে হেসে কথা বলছে, সুপ্তি তো ক্ষেপে আগুন,

,
সুপ্তি- ৭ দিন এ আমার একটা খবর নিসনি তুই, আর এখানে মেয়েদের সাথে ঢলাঢলি বের করছি দারা,,,,
,
সুপ্তি ওর ক্লাস এর এক ছেলেকে ডেকে নিয়ে এসে আবির কে দেখিয়ে দেখিয়ে গল্প করতে থাকে। কিন্তুু আবির ওদের দেখেও না দেখার ভান করে চলে যায়,,,সুপ্তির রাগ চরমে উঠে যায়,,,,

,
সুপ্তি- আমি চাচ্ছি সব কিছু ঠিক করতে আর তুমি আমায় এভোয়েট করছো,,, আমি সেদিন ও দেখছি তোমায় আমায় নিয়ে বাজে কথা বলার জন্য নিলা আপুকে কেমন করে মারছো। আর আজ আমায় দেখে এমন করছো যেনো আমায় চিনোই না,,,, দেখি তুমি আর কি কি করতে পারো,,,,,

,
সুপ্তি ক্লাস রুমে চলে যায়,,, রুমে গিয়ে দেখে আবির সেই মেয়েটির সাথে,,,, ওকে ম্যাথ বুঝিয়ে দিচ্ছে,,,,, সুপ্তি চুপচাপ পিছে গিয়ে বসেপরে,,,,
,
আবির একটা অংক বোর্ডে দিয়ে সবাইকে সলভ করতে বললো,,,, সুপ্তি দেখলো যে একটা সহজ ম্যাথ দিছে কিন্তুু সুপ্তি ইচ্ছে করে ভুল ভাল উত্তর করে,,,,সবার খাতা নিঢে দেখার পর আবির সুপ্তির খাতা নিয়ে দেখলো। তারপর ভ্রু কুচকে সুপ্তির দিকে তাকিয়ে বললো,,,,,,,

,
আবির::::: মিস্, সুপ্তি এটাকে তোমার ক্লাস রুম মনে হয় নাকি খেলার জায়গা মনে হয়??? এই সামান্য ম্যাথ টুকু করতে পারো না, ফাইনাল এ গিয়ে তো ফেল মারবা , তোমার মতো মেয়েদের জন্যই কলেজের রেপুটেশন খারাপ হচ্ছে, নেক্সট টাইম এমন হলে রুম থেকে বের করে দিবো,,,,,,, বসো,,,,,

,
সুপ্তি আবিরের কথা শুনে কান্না করতে থাকে, আবির দেখে মুখ ফিরিয়ে নেয়,,,
তখন পাশে থেকে কোনো ছাত্রী বলে উঠে,,,,,,

,
____ স্যার আপনি কিছু ভুলে যাচ্ছেন,,,,

,
আবির ::::: কি????

,
_____ স্যার আপনি বলছিলেন ক্লাসে পরা না পারলে মাঠে দাড় করিয়ে রাখবেন তো এখন সুপ্তিকে বসতে বললেন যে????

,
আবির:::: না আসলে,,,,

,
সুপ্তি- তোদের টেনসন করতে হবে না আমি যাচ্ছি,,,,,

,
আবির ::::; ( আমি বুঝতে পারছি তুমি কেনো এমন টা করলে)

,
সুপ্তি কাদতে কাদতে মাঠে এসে দারিয়ে থাকে, আবির কিছু বলে না,,, কারন সেদিন কেবিন থেকে বেরিয়ে মনের সাথে যুদ্ধ করে সিদ্ধান্ত নেয় যে,,,,
আবির :::আমি আর সুপ্তিকে কষ্ট দিব না।,, আমি জানি আমি তোমার লাইফ এ যতদিন থাকবো তুমি ততোদিন শান্তিতে থাকতে পারবে না আমি তোমার লাইফ টাকে গুছিয়ে দিবো ঠিক আগের মতো। আর রাজ ই পারবে তোমাকে ভালো রাখতে, রাজ এর সাথে তোমার বিয়ে দিয়ে আমার জীবন আমি শেষ করে দিবে, আমার জীবনটাই তুমি, তুমি না থাকলে আমি বাচবো কি করে বলো,,,, কিন্তুু আমার জন্য তোমার আর কনো সমস্যা হোক আমি চাই না,,,, তাই তুমি আমায় ঘ্রিনা করো সেই কাজটাই এখন থেকে করবো,,,,

,
আবির সেই রাত এ ওর বাবা কে নিয়ে সুপ্তির বাসায় যায় আর আবির নিজের শরীর ছুইয়ে সবাইকে প্রমিস করিয়ে নেয় ,,, সুপ্তিকে নিয়ে আবির যে সব পাগলামি করছে এটা সুপ্তিকে কেউ যেনো না বলে, আর রাজ এর সাথে সুপ্তিকে বিয়ে দিবে সবাইকে কনভেন্স করে,,,,………

,

,আবির আর সুপ্তিকে এভাবে দারিয়ে থাকতে পারে না। চলে যায় সুপ্তির কাছে,,,,,
সুপ্তি আবিরকে দেখে মনে মনে খুব খুসি আবির হয়তো এখন ওর কাছে মাফ চাইবে,,,,, কিন্তুু না,,,,,

,
আবির ::::: আমি অফিসে পৌছানোর পরে যেনো তোমায় পাই,,,,,
,
বলে আবির চলে গেলো,,,, সুপ্তি যেনো আরো ডুকরে ডুকরে কেদে ওঠে,,,, মানুষের কাছে সবচেয়ে কষ্টের ভালোবাসার মানুষদের অবহেলা,,,,
,
সুপ্তি অফিস এ পৌছালো,,, আর আবিরের আগেই। আবির ইচ্ছা করেই লেট করে আসে। কারন ও জানে সুপ্তির আসতে দেরি হবে,,,

,
অলি ::::: আপু,,,,,,,,,, কেমন আছো তুমি? এতোদিন অফিসে আসো নি কেনো??? কোথায় ছিলা??? জানো কত্ত মিস করছি তোমায়,,,,,,

,
সুপ্তি- আরে আস্তে আস্তে একবারে এত্ত প্রশ্নের উত্তর কেমনে দিবো??? আমি ভালো আছি তুমি কেমন আছো)???

,
অলি:::: আমি ভালো আপু,,,,, আপু তোমার কিছু হয়েছে??? কেমন জানি দেখাচ্ছে,,,,,

,
সুপ্তি- না কিছু না এমনি,,,, আচ্ছা পরে কথা হবে আমি আমার ডেস্ক এ যাই একটু,,,,,,

,
( বলেই চলে যায় সুপ্তি আর দেরি করে না। অখানে আর এক মিনিট থাকলে আর নিজেকে কন্ট্রল করতে পারতো না। অনেকদিন পর আজ নিজের ডেস্ক টা দেখছে,,,, টেবিল এ অনেক ফাইল জমছে,,,, সুপ্তি সেগুলো দেখতে থাকে এর মধ্যে অলি আবার আসে,,,,

,
অলি::::: আপু আসবো,,,,

,
সুপ্তি- হ্যাঁ আসো,,,

,
অলি :::: এমডি স্যার সবাইকে কনফারেন্স রুমে ডাকছে জরুরি কথা বলবে,,,,

,
সুপ্তি- চলো,,

,
গিয়ে দেখে নিলা আর আবির পাশাপাশি খুব ক্লোজ হয়ে বসে আছে যা সুপ্তি কোনোদিন ও আশা করে নি,,,,,

,
আবির:::: hlw Everyone …. আজ আমি অনেক খুসি কারন কাল হঠাৎই আমার আর আমার কাজিন নিলার এংগেইজমেন্ট হয়ে গেছে,,,, ঘটনাটা হঠাৎই হবার কারনে আপনাদের কাউকে জানাতে পারি নাই,,,, তাই next week আমি একটা পারটি ওরগানাইজ করছি আপনার সবাই আমন্ত্রিত।। আপনারা সবাই আমার নতুন জীবনের জন্য দোয়া করবেন,,,,

,
( সবাই গিয়ে আবির আর নিলাকে শুভেচ্ছা প্রদান করছে,,,, আর সুপ্তি নিজের ডেস্ক এ চলে গেলো,, একটু পর সুপ্তির ডেস্ক থেকে কিছু ভাঙার শব্দ হয়,,,, শব্দ শুনে সবাই সুপ্তির ডেস্ক এ যায়,,,, আবির জানতে পেরে গিয়ে দেখে,,,,,,,

,
চলবে,,,,,#বাতাসী_বউ
_____ অন্না
পর্ব : ১১

,
সবাই সুপ্তির রুম এ এসে দারিয়ে যায়,,,, কাচের টুকরা পুরা ফ্লোরে পরে আছে আর সুপ্তি সেই কাচে হাত চেপে বসে আছে, রক্তে ফ্লোর ভিজে আছে ,,,,,

,
অলি :::::: আপু কি করছো তুমি??? পাগল হইয়ে গেলে??? দেখি,,,,

,
সুপ্তি- ( মাথা নিচু করে,,) oli plz leave me along,,,

,
অলি ::: না আমি যাবো না, তোমার হাত এ কাচের টুকরো ঢুকে যাবে প্লিজ আপু,,,,,

,
সুপ্তি- oli i say leave me along,,, ( চিল্লিয়ে)
,
অলি দেখলো সুপ্তির চোখ মুখ লাল বর্ন ধারন করছে,,, কিন্তুু সেটা রাগে নাকি দুঃ খে সেটা সে বুঝতে পারে না,,, তাই চলে যায়,,, আর আবির এসে সুপ্তিকে দেখে থমকে যায়, কারন সুপ্তির ভালোর জন্য আজ এত্ত বড় একটা নাটক করলো, কিন্তুু তার বিপরীত এ সুপ্তির ক্ষতিই হচ্ছে,,,,,
,
আবির :::: পাগল হয়ে গেছো তুমি করছো টা কি??? দেখি……

,
সুপ্তি- ( রক্তে মাখা হাত টা আবিরের সামনে ধরে,,,) don’t touch me Mr. Abir Ahmed,,,, sorry sorry prioncy of nila,,,,,,
দয়া করে আমায় নিয়ে আপনার ভাবতে হবে না স্যার আমি ঠিক আছি,,,,,

,
আবির :::: কি ঠিক আছো তুমি হ্যা,কি ঠিক আছো??? কি প্রমান করতে চাচ্ছ???

,
সুপ্তি- না স্যার আমার কি যোগ্যতা আছে বলেন আপনাকে কোনো প্রমান দেবার। আমি সামান্য একটা মেয়ে,,, আমার কোনো রাইট ই নাই কারো বিষয়ে কিছু বলার,,,,

,
আবির :::: সুপ্তি কথা পরে হবে আগে তোমার হাত ব্যান্ডেস করতে হবে পিল্জ তোমার এমনি শরির ভালো না,,,

,
সুপ্তি- কি হবে??? মরে যাবো??? আমি মরে গেলে কারো কিছু হবে না,,,, আর আমাকে নিয়ে আপনার ভাবতে হবে না আপনি আপনার নিলার কাছে যান,,,, আমি,,,,( বলতেই নিলার মাথা ঘুরে আসে ও মাথায় হাত দিয়ে নিজেকে কন্ট্রোল করার চেষ্টা করে)

,
আবির :::: কি হইছে??? সুপ্তি প্লিজ অনেক হইছে,,,,,,

,
সুপ্তি- সরি স্যর আমার জন্য আপনাদের মূল্যবান সময় নষ্ট হইলো,,,,,,

,
আবির:::: সুপ্তি তুমি খুব বেশি কথা বলছো আর একটা কথাও না ( বলে সুপ্তির হাত ধরতে গেলো)
,

সুপ্তি- ( হাত সরিয়ে নিয়ে,,,) কি করছেন কি স্যার আমায় ছুইলে নিলা ভাবি রাগ করবে তো,,,,

,
আবির::::: সুপ্তি,,,,,,,,,
,
( সুপ্তি ডেস্ক থেকে বেরিয়ে নিলার কাছে যায়,,নিলার হাত ধরে বলে
)
,
সুপ্তি- ভাবি আমায় ক্ষমা করবেন। আমার জন্য আপনাদের লাইফ এ আে কনো সমস্যা হবে না, আপনারা ভালো থাকবেন

,
( সুপ্তি ওর হাত থেকে আবিরের দেওয়া আংটিটা খুলে নিলার হাত এ পরিয়ে দেয়, আবির শুধু দেখলো,,,, ঘটনাটি আবিরের বাবা ও দেখলো)

,
আবিরের বাবা :::: মা তুই এইসব কি করছিস,,,,,

,
সুপ্তি- কিছুনা স্যার

,
আবিরের বাবা:’:: স্যার??? আমায় তুই পর করে দিচ্ছিস???

,
সুপ্তি- স্যার আমার ভালো লাগছে বাসায় যাবো আমায় কি ছুটি দেওয়া যাবে???

,
আবিরের বাবা ক্রুদ্ধ চোখে আবিরের দিকে তাকালো,

,
আবির :::: চলো আমি তোমায়,,,,,,
,
( সুপ্তি পরে যাচ্ছিলো মাথা ঘুরে আবির ধরে নেয়,কিন্তুু সুপ্তি এক ঝটকায় নিজেকে ছারিয়ে নেয়,)

,
সুপ্তি- আমি মরার পর আমার খাটনি টা ধরেন স্যার, আমায় এখন ধরে নিজের শার্ট নোংরা করেন না,,,,,

,
আবির ঠাস করে সুপ্তির গালে থাপ্পর মেরে দেয়,,
,
আবির:::: হয়েছে তোর কথা?? খুব বড় হয়ে গেছিস? থাপ্পরায়ে দাত ফেলে দিবো,,,,,

(বলতেই সুপ্তি মাথা ঘুরে পরে যায়,,,,, আবির সুপ্তিকে তুলতে গেলে আবিরের বাবা থামিয়ে দেয়,,,,

,
আবিরের বাবা :::: থাক আবির তোকে আর কষ্ট করতে হবে না। একটা কাজ করনা মেয়েটাকে বিষ খাইয়ে মেরে ফেল ও না থাকলে কোনো সমস্যাই হতো না, একবার তোর মা একবার তুই,,,,
,( সুপ্তিকে তুলতে লাগলো)

.

আবির:::: বাবা আমি নিচ্ছি তুমি পারবা না,,,,

,
আবিরের বাবা:::: সুপ্তি কি বললো তুই শুনিসনি???

,
আবির::::: বাবা তুমিও আমায় বুঝলা না।
,
আবিরের বাবা::: আমি সব বুঝি এর আগেও তোকে বলছিলাম তুই শুনিসনি,,,, সব কিছু হাতের বাহিরে চলে যাচ্ছে আবির,,,,,

,
চলবে,,,,,,#বাতাসী_বউ
—-অন্না
পর্ব ১২

,

আবিরের বাবা সুপ্তিকে তুলে নিয়ে গাড়ির পিছে ছিট এ সুইয়ে দিয়ে নিজেও গাড়িতে ওঠে, এর মধ্যে আবির গাড়িতে উঠতে গেলে,,,,,

,
আবিরের বাবা::::: তুমি কোথায় যাচ্ছো???

,
আবির::::: বাবা আমি যাবো,,,

,
আবিরের বাবা::::: মরার জন্য ছেরে দিছো,,,, দেখি কতক্ষন বাচিয়ে রাখতে পারি, তুমি যাও

.
আবির কে রেখে আবিরের বাবা চলে গেলো। আবির সুপ্তির ডেস্ক এ এসে সুপ্তি যেখানে হাত ফ্লোরে রেখেছিলো সেখানে হাত চেপে ধরলো,,,,,

,
নিলা:::: কি করছো তুমি??

,
আবির :::: তোকে আমার পারসোনাল বিষয়ে কথা বলতে বারন করছি,,,,, তোর কাজ শেষ বেরিয়ে যা এখান থেকে,,,,

,
আর শোন সুপ্তির আশেপাশে তোকে যেনো না দেখি,, যা,,,

,
নিলা চলে আসে,, এনগেইজমেন্ট এর নাটক টা আবির নিলাকে দিয়ে করিয়ে নেয়।। নিলা তো এইটাই চায় যে আবিরের লাইফ থেকে সুপ্তি সরে যাক আবির ওর না হলে সুপ্তির ও হবে না তাই সে আবিরের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায়. এদিকে আবিরের বাবা সুপ্তিকে ডাক্তার দেখিয়ে বাসায় দিয়ে আসে, আবির অনেকবার ফোন দেয় কিন্তুু ওর বাবা রিসিভ করে না, আবির বাসায় চলে এসে ওর বাবার জন্য ওয়েট করতে থাকে,,, এর মধ্যে আবিরের বাবা আসে)))
,
আবিরের বাবা :::: আবির তুই এখানে? কখন এলি??

,
আবির :::: সুপ্তি কেমন আছে??? ডাক্তার কি বললো???

,
আবিরের বাবা উত্তর না দিয়ে চলে যেতে লাগলো,,,

,
আবির::::: বাবা আমি তোমায় কিছু জিগ্যেস করলাম???
,
আবিরের বাবা :::: মরেনি ও কিন্তুু চিন্তা করিস না খুব জলদি তোদের মনের আশা পুরন হবে ,, ডাক্তার বলছে মেয়েটার অবস্তা এই ভাবে চললে খুব জলদি,,,,,, তোকে কি বলবো নিজের বাসায় থাকিস না। অফিস কোয়াটার এ থাকিস, কি খাস না খাস, কোথায় যাস কিছু যানিনা,, আমাদের কি আর ২ টা সন্তান আছে, তুই আমাদের সম্বল। তোর কিছু হলে আমরা কি নিয়ে বাচবো বল??? আমি সুপ্তিকে সব বলে দেই। সব ঠিক হয়ে যাবে।
,
আবির :::: বাবা আমার কাজ আছে আমায় যেতে হবে,,,,

,
আবিরের মা ;;;;; আবির খেয়ে যা বাবা, আমি তোর পছন্দের বিরিয়ানি রান্না করছি,,,,

,
আবির :::::( তাচ্ছিল্লের হাসি দিয়ে)) বিষ মিশিয়ে দাও নি তো???

,
আবিরের কথা শুনে ওর মা এর হাত থেকে বিরিয়ানির বাসন পরে যায়। আবির বেরিয়ে আসে) ,,,,, সারাদিন সব কাজ করে ফেলে প্ল্যান অনুযায়ি,,,,,

,
এদিকে সুপ্তি ভাবতে থাকে,,,,,
সুপ্তি- আবির তুমি আমায় কোনোদিন ভালোই বাসোনি, ভালোবাসলে আর আজকে অন্য কাউকে,,,,, তোমার জীবনে যখন আমার কোনো মূল্য নাই তখন কেনো তোমায় শুধুশুধু বিরক্ত করবো,,,, দোয়া করি তুমি ভালো থাকো,,,,

,
সুপ্তির মা::::: কিরে কি করছিস???

,
( সুপ্তি ওর মাকে জরিয়ে কান্না করতে থাকে,,)
,
সুপ্তির মা ::::: কাদিস না মা । তুই কেদে কি করবি? আবিে যদি বিয়ে করতে পারে তুই কেনো পারবি না??? রাজ খুব ভালো ছেলে সব জেনেশুনে তোকে বিয়ে করতে চাইছে,,,,, তোর বাবাও সম্মতি দিছে তুই রাজি থাকলে আগামি শুক্রবার বিয়ের কাজ সম্পন্ন করে দিবো। ভেবে দেখ। তুই কার জন্য কষ্ট পাচ্ছিস? দেখ গিয়ে সে ওই মেয়ের সাথে,,,,,

,
সুপ্তি- মা চুপ করো,,,,, আমি বিয়ে টা করবো, তোমাদের কথায় না।আবির পারলে আমিও পারবো। আসি ফেলনা নয় আমি ওকে দেখিয়ে দিবো,,,

,
সুপ্তির মা ::::: আমি জানতাম,,,,,,,

,
সুপ্তি- আর কোনো কথা না তুমি যাও আমায় একা থাকতে দাও,,,,,,

সুপ্তির মা চলে গেলো আর সুপ্তির বোন আসলো,,,,,

,
স্বস্তি :::; আপু কেমন আছিস???

,
সুপ্তি- ভালো।।।।

,
স্বস্তি ::::: আপু দেখ আজ আমি কি সুট করছি,,,,

,
সুপ্তি- দেখি,,,,,

,
( পাশের বাসার এক আন্টিকে কুকুর তারা করছে সেইটা লুকিয়ে লুকিয়ে সুট করে সবাইকে দেখিয়ে হেসে ঘর ভেঙে ফেলছে ওর বোন।)

,
সুপ্তি- তোর এই লুকিয়ে সুট করার অভ্যাস টা গেলো না?

,
স্বস্তি :::: আপু মজা যে লাগে ছারতে পারি না,, আর তোর সাথে আমার অনেক কথা আছে,,,

,
সুপ্তি- তোর প্যাচাল শুনতে ভালোলাগছে না,,,

,
স্বস্তি;:;;;; আপু একটা কথাই বলি আশেপাশে অনেক কিছু হচ্ছে যার কিছু তুই যানিস না চোখ কান খোলা রাখ,,,,এই দেখ তার প্রমান,,,,

সুপ্তি তার বোন এর প্রমান দেখে থ মেরে গেলো, ,
,
সুপ্তি ওর মা এর কাছে গিয়ে বললো,,,
,
সুপ্তি- মা আমি বিয়ে টা করবো তবে সামনের শুক্রবার নয় আবির যেদিন বিয়ে করবে সেদিন,,,,,

,
সুপ্তির মা সুপ্তির কথা শুনে হতস্তম্ভ হয়ে ফোনে কথা বলতে ব্যস্ত হয়ে পরে,,,,,

,
পরদিন সকালে সুপ্তি খুব সুন্দর করে সেজে রাজ এর বাইকে কলেজে যায় আর রাজ কে জরিয়ে,,,,, আবির ব্যপার টা ফলো করে রাগে ফুলে যায়,,,, সুপ্তি বাইক থেকে নেমে রাজ এর চুলগুলো এলোমেলো করে দিয়ে চলে আসে,,,, আবির এটা দেখে আরো ক্ষেপে যায়,,, সুপ্তির হাত ধরে টানতে টানতে ফঁাকা যায়গায় নিয়ে যায়।)))))

,
আবির::::: কি হচ্ছে এইসব???
,

,সুপ্তি- ::: আরে স্যার যে কেমন আছেন? ভাবি কেমন আছে???

,
আবির:::: তুমি ওর বাইক এ আসলে কেনো? রাস্তায় গাড়ির কম পরছে???

,
সুপ্তি- কি যে বলেন স্যার হবু বর থাকতে অন্য গাড়িতে আসতে যাবো কেনো???

,
আবির ::;; বিয়ে হবে? এখনও হয়নি ওকে???

,
সুপ্তি- হতে কতক্ষন??? আর স্যার আমায় যেতে হবে কাজ আছে,, ,

,
( বলে সুপ্তি চলে আসে,,,, আবির রাগে গজগজ করতে করতে ক্লাসে আসে,,,,এসে দেখে সুপ্তি সেদিন এর সেই ছেলের সাথে বসে আছে আর সেই ছেলেটা সুপ্তির হাত নিয়ে কিছু বলছে,,,)
,

আবির :::: excuse me,,,, এটা ক্লাস রুম। কোনো পার্ক নয় যে হাত ধরে রোম্যান্স করছেন???

,
সুপ্তি- স্যার ও তো আমার হাত দেখে আমার ভবিৎষত গননা করছিলো,,, আপনি ও দেখান,,,

,
বলে আবিরের হাত এগিয়ে দেয়,,,,

,
ছেলেটা :::: স্যর আপনার খুব কাছের একজন খুব তারাতারি হারিয়ে যাবে মানে মরে,,,,,

,
আবির:::::: যাস্ট স্যাট আপ, ইউ,,,,,

( আবির চলে যায় .. সুপ্তি কিছু না বলে অফিসে চলে আসে)

,
সুপ্তি অফিস এ গিয়ে কেবিনে ঢুকতেই কারো গায়ের ওপর উল্টে পরে,,,,,,, চোখ খুলেই দেখে ও কেউ ওকে কোমড়
জরিয়ে ধরে আছে,,,,, সামনে আবির দারিয়ে আছে,,,,,

,
আবির::::: ও আমার কাজিন নীল, আর ও আমার পি, এ সুপ্তি ( দাতে দাত চেপে,,,)

,
নীল::::: তুমি ঠিক আছো তো সুপ্তি কোথাও লাগেনি তো???

,
সুপ্তি- না আমি ঠিক আছি,,,,,

,
আবির :::: কিছু হবে কি করে তুই ওকে যে ভাবে চেপে ধরে আছিস ওর কিছু হতে পারে???

,
সুপ্তি নীলের কাছ থেকে নিজেকে ছারানোর চেষ্টা করলে ওর চুল নীলের শার্টের আটকে যায়, সুপ্তি আহ্ করে ওঠে,,,, তখন নীল সুপ্তিকে নিজের কাছে টেনে নেয়,,,, আবির সহ্য করতে না পেরে সুপ্তিকে এক ঝটকায় সুপ্তিকে নিজের কাছে টেনে নেয়,,,,

,
নীল ;;; আবির কি করছিস ব্রো ওর লাগবে তো,,,,

,
আবির ::::: তুই বাহিরে যা,,,,

,
নীল;;;;; কিন্তুু ওকে একা রেখে???
,
আবির :::: তোর ও আমার কাছে এতোদিন একাই থেকেছে,,,, ওর সাথে আমার কথা আছে প্লিজ যা,,,,

,
নীল :::: ওকে ব্রো। সুপ্তি আমি তোমার ডেস্ক এ বসছি তুমি আসো,,,

,
নীল বেরিয়ে যাবার সাথে সাথেই সুপ্তিকে দেওয়ালের সাথে চেপে ধরে,,,,,,

,

,
চলবে,,,,,,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here