#তোকে চাই পর্ব ১৫

0
140

#তোকে চাই❤পর্ব১৫
#:রোদেলা❤



একটা আইসক্রিম পার্লারের সামনে উনি দাড়িয়ে পড়লেন,,আমাকে ভিতরে যেতে বলতেই আমি মানা করে দিলাম,,যে আমি আইসক্রিম পার্লারে যাবো না।।উনি অবাক চোখে জিগ্যেস করলেন,,,

ঢুকবে না তো আইসক্রিম খাবে কেমনে??

কেনো রাস্তায়,,

এসব পাগলামোর মানে কি রোদ??(বিরক্ত হয়ে)

আপনি আইসক্রিম আনুন,,আমরা হাঁটতে হাঁটতে খাবো,,,(মুখ গোমরা করে)

হোয়াট ননসেন্স?

আপনি যাবেন??নাকি আমি মামুকে বাসায় গিয়ে বলবো?

যাচ্ছি,,,(দাঁতে দাঁত চেপে)

উনি আইসক্রিম আনতে গিয়েছেন প্রায় দশমিনিট হতে চললো,,,এখনো আসছেন না,,এদিকে আমার বড্ড অস্বস্তি লাগছে,,, ভয়ও লাগছে ব্যাপক।।আমার ভয় আর অস্বস্তির প্রধান কারন হলো,,আমার থেকে একটু ডিসটেন্সে দাঁড়িয়ে থাকা তিনটে ছেলে।।ছেলেগুলো খুব বিশ্রীভাবে আমার দিকে তাকিয়ে আছে।।ব্যাপারটা আমার হজম হচ্ছে না,,ছেলেগুলোকে আমার দিকে এগিয়ে আসতে দেখেই আমার হাত -পা কাঁপতে লাগলো,,বার বার এদিক-ওদিক তাকাচ্ছি,,যদি উনাকে দেতে পাই,,কিন্তু না,,তার তো কোনো খোঁজ খবরই নেই।।।ছেলেগুলো আমার কাছাকাছি এসে থেমেগেলো,,,তাদের মধ্যে লম্বা করে ছেলেটা বলে উঠলো,,

মাম্মা,,,এ তো একদম বম্বে মরিচ রে,, সেইরম হট,,(দাঁত কেলিয়ে)

আরে মামা,,মরিচ না রে এ তো পুরাই স্ট্রবেরী আইসক্রিম,,,

ওদের ভঙ্গিমা আর কথায় আমার রীতিমতো কাঁপুনি ধরে যাচ্ছে,,চোখ দিয়ে অনর্গল পানি পড়ছে,,মনে হচ্ছে শেষ রক্ষা বুঝি হলো না,,,উনি কোথায়??প্লিজ তাড়াতাড়ি আসুন প্লিজজজ,,মনে মনে শুধু একটা দোয়াই করছিলাম।।মন বলছিলো উনি পাশে থাকলে আমি সবচেয়ে বেশি সেফ,,,, ওদের একজন আমার দিকে আরেকটু এগিয়ে এসে বললো,,

আরে চুপপপ কর তোরা,,,,বোম্বে চিলি না আইসক্রিম,, সেটা তো টেস্ট করেই বুঝা যাবে,,,,কি বলো গো ফুলটুশি??(বিশ্রী একটা হাসি দিয়ে)

আমি দাঁড়িয়ে থাকার শক্তি হারিয়ে ফেলছি,,,,ব্রেন ক্রমাগত বলে চলেছে,,,,রোদ পালা,,,রোদ পালা।।।কিন্তু বেহায়া পা তাতে সাড়াই দিচ্ছে না।।ছেলেটা আমার দিকে আরেকপা এগিয়ে এলো কিন্তু আমি একচুল নড়লাম না,,আসলে নড়তে পারছিলাম না,,,মনে হচ্ছে কেউ আমার পা দুটো মাটির সাথে সেটে দিয়েছে।।

এই তোরা কিসবের কথা বলছিলি,,,আমার তো একে পুরাই লাল গোলাপ লাগছে রে,,,,শরীরটাও মনে হচ্ছে ফুলের মতো নরম,,,,,আর ঠোঁট,,(বলেই হাত এগিয়ে দিলো)

আমি ভয়ে আর ঘৃনায় সাথে সাথেই চোখ বন্ধ করে নিলাম।।কয়েক সেকেন্ড পরও সব নিশ্চুপ,, কোনো আওয়াজ না আসায়,,ধীরে ধীরে চোখ খুলে তাকালাম,,,ছেলেগুলো ভয়মিশ্রিত চোখে আমার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কাউকে দেখছে,,আমিও ভয়ে ভয়ে তাকালাম,,,শুভ্র দাড়িয়ে আছে,,,একহাতে আইসক্রিমের মাঝারি সাইজ বাক্স আর অন্য হাতে আমার দিকে এগিয়ে আসা ছেলেটির হাত চেপে ধরে রেখেছে শক্ত করে,,,,চোখে মুখে রাগ স্পষ্ট,,,,তবু মুখে একটা বাঁকা হাসি টেনে নিয়ে বললেন,,,

কি রে ভাই??তোরাই না বলছিলি যে দেখতে নাকি পুরাই গোলাপ ফুল,,,তো এটা কেমনে ভুলে গেলি যে গোলাপ ফুলের সাথে কাটা থাকে,,,ফুল পেতে হলে তো কাটার ব্যাথাও সহ্য করতে হবে(ছেলেটির হাত মোচড়াতে মোচড়াতে)তাই না??(দাঁতে দাঁত চেপে)আর এই ফুলের কাটা হলাম আমি,,,এবার কাঁটার গুতা খাওয়ার পালা বস।।।

ছেলেগুলো হয়তো উনাকে আগে থেকে চিনে,,,আবার নাও হতে পারে কিন্তু ওদের মুখের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে তারা ব্যাপক ভয় পেয়েছে,,,একজন তো রীতিমতো কাঁদো কাঁদো কন্ঠে বলেই উঠলো,,,

ভাই সরি ভাই,,,মাফ করে দেন ভাই।।।আসলে ভুল করে একটু মাল খেয়ে ফেলছিলাম তাই টাল হয়ে,,, এমনটা করে ফেলেছি,,সরি ভাই।।।

সরি??শালা তোর সরি দিয়ে কি জুস বানায় খাবো,,,,যে ফুলের গায়ে ভ্রমর বসলেও আমার সহ্য হয় না সেই ফুলকে দুমড়ে -মুচড়ে দেওয়ার জন্য হাত বাড়িয়েছিস তোরা,,,এতো সহজে ছেড়ে দিবো??হাত কেটে রেখে দিবো(চিৎকার করে)

আমি অবাক চোখে তাকিয়ে আছি,,,উনি এভাবে রিয়েক্ট করবেন ভাবি নি,,উনাকে দেখামাত্রই সব ভয় গুলো যেনো পাখা মেলে উড়ে গেছে।।আচ্ছা?উনি কি আমার জায়গায় অন্য মেয়ে থাকলেও এমনটাই করতেন??হয়তো,,,,, কথাটা ভেবেই মন খারাপ হয়ে গেলো,,উনি আমার দিকে এক পলক তাকিয়ে হাতের আইসক্রিমের বক্সটা এগিয়ে দিলেন।।।দিতে দিতে বললেন,,,,

রোদ,,,আইসক্রিম খাবা বলছিলা,,,টেক ইট।।।বেশ কিছু আইসক্রিম আছে এতে,,,একটা বের করে খেতে খেতে লাইভ ড্রামা ইনজয় করো,,,,

আমি বক্সটা হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছি,,উনি আমাকে ধমক দিয়ে বললেন,,
কি হলো খাও,,,

পাগল নাকি লোকটা??এমন একটা সিচুয়েশনে কেউ আইসক্রিম খায় নাকি??আজিব।।।আমি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে খাচ্ছি আর উনি ওদের ইচ্ছামতো কেলাচ্ছেন।।প্রায় পনেরো মিনিট পর ওদের ছেড়ে দিয়ে আমাকে নিয়ে হাটা ধরলেন,,এতোক্ষণে আমি দুইটা আইসক্রিম ফিনিশ করে ফেলেছি।।উনাকে আইসক্রিম এগিয়ে দিতেই উনি জানালেন উনি আইসক্রিম খান না,,,,বুঝতে পারছি মিথ্যা কথা তবু কিছু বললাম না,,,,উনাকে দেখে মনে হচ্ছে,,ওদের মেরে উনি শান্তি পান নি।।আরেকটু মারতে পারলে খুশি হতেন।।।আমি ব্যাপারটা স্বাভাবিক করার জন্য বললাম,,,

দেখছেন ছেলেগুলো আমাকে কেমন কেমন কমেন্ট করছিলো,,

হুমম,,,ইডিয়টদের মেরে তক্তা বানাতে পারলে শান্তি পেতাম,,,,বাচ্চা মেয়েদের দিকেও বাজে নজর দেই,,,শালা পশু কোথাকার,,,

এতো কিছুর পরও আপনার মনে হচ্ছে আমি ছোটো??

তো??

তো মানে??ওরা আমাকে হট বলছিলো,,আরো কত কি বলছিলো,,আর আপনিই একমাত্র জীব যে এখনো আমাকে বাচ্চাটি মনে করেন হুহ,,,,

বাচ্চাদের বাচ্চায় মনে করা উচিত,,ওদের আবার পেলে আবার মারবো,,সাহস কেমনে হয় তোমার দিকে হাত বাড়ানোর(চোখ মুখ শক্ত করে)

তাই??ওকে মাইরেন,,,মারতে মারতে তক্তা বানিয়ে দিয়েন,,,,আপাতত আমাকে কোলে নেন,,,বাচ্চাদের কোলে নিয়ে হাটা উচিত,,জানেন না??,,,এখন কোলে নেন আমায়।।

হোয়াট রাবিশ??(রাগী চোখে)

আপনি আমাকে কোলে নিবেন ব্যস,,নয়তো আমি এক পা ও এগুবো না,,,,

ওকে ফাইন,, থাকো এখানে(বলেই উনি এগিয়ে গেলেন)

আমি চুপ করে দাড়িয়ে আছি,,,যাবো না আমি,,,যা ইচ্ছে হোক আমার,,তাতে উনার কি??আমি তো আর উনার নীলি না,,,,যে কোলে তোলে নিবে।।।নীলিমা আপু হলে তো বলার আগেই কোলে তুলে নিতো,,,,আর আমার বেলায় হুহ,,এতো অবহেলা সহ্য হবে না,, ঠাডা পরবে ঠাডা,,,শালা খাটাস,,,,আমার ভাবনা -চিন্তার জগৎ উল্টে পাল্টে দিয়ে,,,উনি ফিরে এসে হুট করেই আমাকে কোলে তোলে নিলেন,,,,আমি তো পুরাই “হা”

#চলবে…..

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here