Addicted_love Part:৩+৪(একসাথে)

0
441

Addicted_love
Part:৩+৪(একসাথে)
#Writer:Aarizona_Ella_copyright_by_picchi_Ridoy
অনুষ্ঠান শুরু হইয়ে গেছে সব বিজনেসম্যান রা ফরেইনার মেয়ে গুলোর সাথে একে একে হাগ করে যাচ্ছে।তাদের আচার আচরন সব কিছু কেমন জানি অদ্ভুত লাগছে হইতো তাদের কালচার আর আমাদের কালচার এক না হওয়ার কারনেই এমন অদ্ভুত লাগছে।আমি অবাক হইয়ে তাকিয়ে আছি সবার দিকে।
এলা? কি সমস্যা এখানে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কি ভাবছো? এক নম্বর টেবিলে ওয়াইন সার্ভ করে দিয়ে আসো।(ম্যানেজার)
জি স্যার!
ওয়াইন নিয়ে গিয়ে যা দেখলাম আমি।।জনাব আশফাক আর মেয়েটা কথা বলছে।
hey darling, u r looking so attractive.jst feeling to kiss on ur lips.(আশফাক)
oh darling i never forbid u to do anything at anytime. (মেয়েটা)
xcuseme sir (আমি)
(আমার দিকে তাকিয়ে ভ্রু কুচকে)who r u? N why u staring at us?( ইশফাক)
Sorry sir! Actually i came here for ur service.
So why r u standing like a stupid.?do it fast n get away from here.(মেয়েটা)
ok Ma’am.. (টেবিল এ রেখে চলে যাওয়ার সময়)
hey listen?( ইশফাক)
yes sir!(আমি)
put the wine into the glasses!(ইশফাক)
ok sir! (মাথা নিচু করে)
কাজ সারা মাত্র ওখান থেকে কেটে পড়লাম।
দেখতে অনেক সুদর্শন হলেও আস্তো একটা লুইচ্চা।কি সব বলতে ছিল ছি”!!!!!!আসলে ওই যে কথায় আছে না একে তো নাচন বুড়ি,তা উপর ঢোল এর বারি।কোটিপতি রা স্বভাব এর ই এমন হয়।তার উপর ওই কান কাটা পেত্নি।জনাব এর উপর ক্রাশ খেয়ে আজাইরা টাইম নস্ট করলাম।
একে একে সব বিজনেসম্যান গুলা স্পিচ দেওয়া শুরু করেছে।জনাব ইশফাক চৌধুরীর সুনাম এর বন্যা ভাসায় দিচ্ছে।যেভাবে উনার সুনাম গাচ্ছে কিন্তু তার মধ্যে আমি সুনাম করার মতো তেমন কোন মহত্ত্ব খুজে পাইনি।
সবার শেষ মেষ জনাব ইশফাক স্পিচ দিতে স্টেজ এ উঠলেন
good evening ladies and gentleman. I hope u guys are enjoying this grand party.u all r well known to me n my businesses records. Thanks to u all for being a part of this.lets celebrate for my success with Having a couple dance.. Well done guys…
সবাই একে একে জুটি হইয়ে নাচ্ছে,আর আমি চারিদিক ঘুরে ঘুরে দেখছি তাদের ড্যান্সিং।কাপল চেঞ্জ হচ্ছে আর একে অপরের সাথে নাচ্ছে। দেখতে দেখতে কখন যে তাদের মাঝে ঢুকে পরেছি তা বুঝতে পারি নি।হঠাৎ কারও সাথে ধাক্কা খাওয়াই হুশ ফিরলো।উপরে তাকিয়ে আমি তো ভয়ে চুপসে গেছি আর কেউ না জনাব ইশফাক চৌধুরী।ইয়া লম্বা আমি তার বুকের নিচে পরে আছি।
আচমকা টান দিয়ে তিনি আমাকে তার একদম কাছে নিয়ে আসলেন।
কি নাচার খুব সখ তোমার? দারাও সখ মিটাচ্ছি তোমার। (ইশফাক)
কি করছেন ছাড়ুন আমাকে!
ড্যান্স করা ছাড়া তোমাকে কিভাবে যেতে দি বল?(ইশফাক)
আমাকে আরও শক্ত করে ধরে উনার এক হাত আমার কোমর এ অন্য হাত আমার পিঠের একপাশে দিয়ে রেখেছেন।
কি করছেন ছাড়েন আমাকে।। (কান্না করতে করতে বললাম)
তোমার সাথে one Night stand করতে চাই,প্রথম দেখাতে তুমি আমাকে অনেক এ্যাটরার্ক্ট করেছ।বিনিময়ে যা চাও তা ই দিব(ইশফাক)
ঠাাাসসসসসসসস।।।।
(ধাক্কা দিয়ে) কি মনে করেন নিজেকে?অনেক বড়লোক আপনি?তাই যা খুশি তা করবেন যাকে ইচ্ছা কিনে নিবেন।যদি টাকা দিয়ে মানবতা আর ভদ্রতা কিনে নিতেন আজকে এই অবস্থা হতো না।না আমার না আপনার।এটা আপনার আমেরিকা না,না আমি কোন আমেরিকান চামচা যে যখন যা খুশি তা করবেন।
সব কিছু থমকে গেছে।সবাই শুধু অবাক হইয়ে তাকিয়ে আছে আমাদের দিকে।
how dare u? তুমি ইশফাক চৌধুরীর গায়ে হাত তুলেছো(ইশফাক)
হবেন আপনি পুরা পৃথিবীর জন্য সম্রিদ্ধশালি একজন ব্যক্তি।কিন্তু আমার জন্য আপনি একজন অভদ্র,নোংরা,আর অসভ্য এক টা লোক।
বলেই দৌড়ে বের হইয়ে গেলাম ওখান থেকে।
(রেগে চোখ আগুন এর মতো লাল হইয়ে গেছে)u have to pay for this.কোথায় হাত দিয়েছ তার আন্দাজ ও করতে পারবে না তুমি।আগুন এ হাত দেওয়া উচিত হয় নি তোমার।। (ইশফাক)
চলবে।
#Addicted_love
পার্ট: ৪
Writer:Aarizona Ella
বাসায় গিয়ে রুম লক করে কান্না করছি।কিছু বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।কি করবো কিছুই বুঝে উঠতে পারছিনা।রুমের বাইরে থেকে মা ডাকছে।। আর দরজায় বারি দিচ্ছে।
এলা কি হয়েছে মা? এমন করছিস কেন? দরজা খুল।আমার সাথে কথা বল! তুই কিছু না বললে বুঝবো কেমনে।(মা)
কি বলবো মা কে।অজথা চিন্তা করবে।বলার ভাষা খুজে পাচ্ছি না। গিয়ে দরজা খুললাম।
কি হয়েছে তোর? এভাবে নিজেকে রুম এ বন্ধ করে রাখলি কেন? কখনো তো এমন করিস না।বল আমাকে কি হয়েছে? (মা)
না মা আসলে এমনিতেই মাথা খুব বেথা করছিল তাই।ওয়াস্রুম এ ছিলাম এতক্ষন তাই তোমার আওয়াজ শুনতে পায় নি।
সত্যি বলছিস তো? (মা)
আরে হ্যা মা! তোমার কি আসলেই মনে হই যে তোমার মেয়ে তোমার সাথে কখনো মিথ্যে বলবে? (মায়ের কাধে হাত রাখতে রাখতে বললাম)
হুম।মাথা ব্যাথা কমেছে?(মা)
হাল্কা কমেছে।
ফ্রেশ হয়ে নে খাব একসাথে চল।(মা)
আচ্ছা তুমি যাও আমি ফ্রেশ হয়ে আসছি।(চাপা হাসি দিয়ে বললাম)
হুম।(মা)
মা যাওয়ার পর ড্রেস চেন্জ করে ফ্রেশ হয়ে নিলাম।কোন ভাবেই মা কে কিছু বুঝতে দেওয়া যাবে না।।
মা এর সাথে আর কোন কথা বলা যাবে না। কথা বললে বেশিক্ষন মিথ্যা বলে থাকতে পারব না।তাই খাওয়া মাত্র মা এর সামনে থেকে সোজা কেটে পরলাম।
how dare her? সামান্য একটা বার এর ওয়েটার এর সাহস হয় কি করে ইশফাক চৌধুরীর গায়ে হাত তোলার (চিৎকার করছে আর ঘরের জিনসপত্র ভেংগে চুরমার করে দিচ্ছে।
স্যার আপনার হাত থেকে রক্ত পরছে।প্লিজ রাগ কন্ট্রল করেন। (রাফিন) ইশফাক এর কেয়ার টেকার।
আমি ওর জীবন কে ধ্বংস করে দিব।ও হারে হারে টের পাবে ইশফাক চৌধুরী কি জিনিস।(চিৎকার করতে করতে বলল ইশফাক)।
রাফিন তুমি ওই মেয়ের ঠিকানা ফুল ইনফরমেশন কালকের মধ্যে আমার কাছে এনে দিবে।কোথায় থাকে,কি করে সব কিছু।(চেচিয়ে বল্লো ইশফাক)
জ্বি স্যার।আপনি মাথা ঠান্ডা করেন প্লিজ স্যার রাত অনেক হয়েছে আমি ডিনার রেডী করছি।(রাফিন)
no damn it! Just get the information to me otherwise i Can’t be calm untill she Won’t be punished by me.চেচিয়ে বললো (ইশফাক)
ok sir.bt take some rest at-least।আমি কালকের মধ্যে আপনাকে ফুল ইনফরমেশন হাজির করে দিব (রাফিন)
হুম।(ইশফাক)
রাগে আর জেদ নিয়ে ইশফাক তার রুম এ চলে গেল।
সকাল এ ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে মা এর কাছে গেলাম।মা কিচেন এ রান্না করছেন।
মা কি করছো?
ব্রেকফাস্ট রেডী করছি।(মা)
মা আমি একটু বাইরে যাবো।
কই যাবি?(মা)
মারিয়ার সাথে একটু শপিং এ যাবো।
ফিরবি কখন?(মা)
১২–০১ টা বাজবে।
আচ্ছা খেয়ে যা।(মা)
খেয়ে বের হয়ে পরলাম।মারিয়া আমাদের ঘরের নিচে অপেক্ষা করছিলো।
কি মহারানী নিচে নামতে এতক্ষন লাগে?(মারিয়া)
মা এর সাথে কথা বলছিলাম তাই একটু লেট হয়ে গেছে স্যরি দোস্ত। চল।
হুম চল(মারিয়া)
রিক্সা নিয়ে দুজন মার্কেট এর উদ্দেশ্যে রওনা হলাম।ভাল্লাগছে না কিছু।কালকের বেপার টা কেমন জানি খুব বেশি আতংকিত করে রেখেছে আমাকে।
যা হয়েছে ভুলে যা দোস্ত। আমি বুঝতে পারছি তোর অবস্থা।সব ঠিক হয়ে যাবে। মুড টা খারাপ করে রাখিস না তো।(মারিয়া)
মুড খারাপ না।কেমন জানি আতংকে আছি। আর আমার মনে হচ্ছে না টাকলা আমকে আর জব এ রাখবে।(মন খারাপ করে বললাম)
কথা বলতে বলতে শপিংমলে এসে পৌছলাম।
রিক্সা থেকে নেমে মল এ ঢুকলাম। মারিয়া জিনিস দেখছে আর আমি কালকের ঘটনা ভাবছি।
হঠাৎ কেমন যানি মনে হলো কেও আমাদের দেখছে।পিছনে ফিরে তাকাতেই কাউকে দেখতে পেলাম না।হয়তো আমার ভুল ছিল।
ওই দোকান থেকে বের হয়ে অন্য দোকান এর উদ্দেশ্য হাটা শুরু করলাম।আবার মনে হলো কেও আমাদের ফলো করছে। পিছনে আবার ফিরতেই দেখি সে লুকিয়ে গিয়েছে।
গা ঝিম ঝিম করছে।কি হচ্ছে আমার সাথে।কেমন জানি অজানা একটা ভয় কাজ করছে আমার মধ্যে।এমন কে আছে যে আমাদের এভাবে ফলো করবে।
মারিয়া চল বাসায় যাবো।
কেন?এখনো তো কিছু কিনি ও নাই। (মারিয়া)
আমার না খুব খারাপ লাগছে চল কাল আবার আসবো।
আচ্ছা চল (মারিয়া)
দুইজন শপিং মল থেকে বের হয়ে রিকশা নিয়ে সোজা বাসায় চলে গেলাম।
চলবে।
কে হতে পারে যে তাদের এভাবে ফলো করতে পারে?জানতে অপেক্ষা করুন আগামি পর্বের জন্য। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here